প্রোফাইল খুলুন “লিংকডইন” এ

প্রোফাইল খুলুন “লিংকডইন” এ

1200 630 Jamia Rahman Khan (Tisa)

আজকাল সোশ্যাল মিডিয়া আমাদের জীবনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা ভূমিকা পালন করছে। বিশেষ করে যোগাযোগ ক্ষেত্রে। এটা এখন আর শুধুই বন্ধুবান্ধব আর আত্মীয়স্বজনের সাথে যোগাযোগের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। ভার্চুয়াল যোগাযোগের একটা অন্যতম মাধ্যম হলো লিংকডইন। নিজেকে তুলে ধরার এক অনন্য প্ল্যাটফর্ম। এখানে আপনি আপনার প্রোফাইল সাজাতে পারেন যা যেকোনো সংখ্যক চাকুরিদাতা খুব সহজেই দেখতে পারেন। আজকাল অনেক প্রতিষ্ঠানই প্রার্থীর লিংকডইন প্রোফাইল দেখতে চায়। গুগলে আপনার নাম লিখে সার্চ দিলেই চলে আসবে আপনার প্রোফাইল। এতে করে আপনার কাজ, সম্ভাবনা আর আগ্রহ সম্পর্কে মানুষের জানাটা আরও সহজ হয়ে যাবে।

লিংকডইন এ প্রোফাইল খোলার আগে আমাদের মাঝে একধরণের ভীতি কাজ করে। কিভাবে কি করবো? এ ক্ষেত্রে কিছু বিষয় মাথায় রাখলে ব্যাপারটা আর অত কঠিন লাগবে না আশা করা যায়।

শিক্ষা
আপনি একজন পিএইচডি শিক্ষার্থী হোন আর হাই স্কুল গ্রাজুয়েটই হোন আপনার প্রোফাইলের শিক্ষাগত যোগ্যতার অংশটিতে সেটি ফুটিয়ে তুলুন সুন্দরভাবে। আপনার আগ্রহ, দক্ষতা, উল্লেখযোগ্য বিষয় যেগুলো নিয়ে পড়েছেন সেগুলো তুলে ধরুন। বৃত্তি কিংবা কোন পুরস্কার পেয়ে থাকলে সেটাও উল্লেখ করুন।

কাজের অভিজ্ঞতা
আপনার কাজের অভিজ্ঞতা যদি হয় শুধুই ভলান্টিয়ারিং কিংবা বড়জোর ইন্টার্নশিপ তবুও অভিজ্ঞতার জায়গাটিতে সেটুকু এমনভাবে তুলে ধরুন যাতে করে আপনার দক্ষতা সম্পর্কে একটা ভালো ধারণা পাওয়া যায়। ধরা যাক, আপনি কোন দাতব্য কাজে ফান্ড রেইজিং করেছেন। লিখুন যে আপনি একজন “ফান্ড রেইজার” হিসেবে কাজ করেছেন। এতে কিন্তু বোঝা যায় যে আপনার যোগাযোগ দক্ষতা ভালো এবং আপনি উদ্যোগ নিতে জানেন।

সামারি বা পরিশিষ্ট
“ইলেভেটর পিচ” এর নাম শুনেছেন? মাত্র ৩০ সেকেন্ডে নিজেকে উপস্থাপন করা! যদিও এটা একটা কঠিন ব্যাপার বটে। কিন্তু চাকুরিদাতা আপনার পিছনে দীর্ঘ সময় নষ্ট করবে না। সামারিও অনেকটা ইলেভেটর পিচের মতই ব্যাপার। এক থেকে দুই লাইনের মধ্যে নিজেকে তুলে ধরুন। আপনি কি করতে চান এবং কেন আপনি এর যোগ্য? এই দুইটি সাধারণ প্রশ্নের উত্তর দিয়েই কিন্তু একটি সংক্ষিপ্ত অথচ আকর্ষণীয় সামারি লিখে ফেলতে পারেন আপনি।

ছবি
লিংকডইনের ছবিটি কেমন হবে? যেহেতু আপনার লিংকডইন প্রোফাইলটি চাকুরিদাতা শ্রেণির মানুষেরা দেখবেন তাই ছবি হওয়া চাই প্রফেশনাল। বিশেষ করে প্রোফাইল ছবিটি প্রফেশনাল হওয়া অতি আবশ্যক। কভার ছবিটির ব্যাপারে যদিও অত বাধ্যকতা নেই। তবে ছবিটি এমন হওয়া উচিৎ যাতে করে আপনার প্রফেশনালিজম ফুটে উঠে।

নেটওয়ার্ক বাড়ান
আপনার হয়তো খুব বেশি মানুষের সাথে যোগাযোগ নেই। এটা দুশ্চিন্তার কোন বিষয় নয়। লিংকডইন স্বয়ংক্রিয়ভাবেই আপনার ইমেইল কন্টাকট লিস্ট স্ক্যান করে আপনার পরিচিত মানুষদের কাছে আপনার প্রোফাইল পৌঁছে দেবে। লিংকডইন প্রোফাইলটিকে যুক্ত করতে পারেন টুইটার, ফেসবুক ও গুগলের মত অনলাইন মাধ্যমগুলোতে। এতে করে আরও বেশি সংখ্যক মানুষ প্রোফাইলটিকে দেখতে পারবে।

যে তিন বিষয় মাথায় রাখবেন

অপ্রয়োজনীয় তথ্য কখনোই নয়
নিজেকে ভালোমতন তুলে ধরার জন্য আপনি যা যা করেছেন তার সবই কি লিখবেন লিংকডইনে? কিন্তু একটা ব্যাপার ভাবুনতো। আপনি অ্যানিমেশন মুভি ভালোবাসেন? আপনি কম্পিউটার গেইমস ভালবাসেন? এই তথ্যগুলি কি আদৌ আপনার ভবিষ্যৎ চাকুরিদাতার জানা প্রয়োজন? হ্যাঁ। শুধুমাত্র যদি আপনি সফটওয়্যার ডেভেলপার হন তবেই।

সংক্ষিপ্ত কিন্তু আকর্ষণীয়
বুলেট পয়েন্ট অথবা অনুচ্ছেদ, যেভাবেই লিখুন না কেন আপনি শুধুমাত্র তুলে ধরবেন আপনার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ এবং দক্ষতাগুলো। খেয়াল রাখতে হবে যেন কোনমতেই চার বাক্যের বেশি না হয়। নয়তো মানুষ বিরক্ত হয়ে আপনার প্রোফাইল নাও পড়তে পারে।

সমন্বয় রাখুন
সবশেষে দেখুন আপনার প্রোফাইল কতটা নান্দনিক। এটা পড়তে এবং দেখতে ভালো লাগছে কি? বানান, ব্যাকরণ যাচাই করে দেখুন। পরিহার করুন দীর্ঘ এবং কঠিন বাক্য। মনে রাখবেন এটা পুরোপুরিই আপনার রেজিউমির মত একটা বিষয়। আপনার সম্ভাব্য চাকুরিদাতা আপনার সাথে সরাসরি দেখা হওয়ার আগেই এর মাধ্যমে আপনার সম্পর্কে জানতে পারছেন। সুতরাং আপনার লিংকডইন প্রোফাইল আপনার সম্পর্কে মানুষকে কি ধারণা দেয় সেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

মূল লেখকঃ জো লোভ্যাট

অনুলিখনঃ জামিয়া রহমান খান তিসা