Yearly Archives :

2017

Lessons from the life of a CEO: Petter B. Furberg

5472 3648 Sumaiya Tabassum Ahmed

Petter B. Furberg, then an Interim CEO, Grameenphone, visited the Bangladesh Youth Leadership Center (BYLC) headquarters on May 24, 2017. Graduates of BYLC’s leadership programs had the unique opportunity to hear about the key lessons Mr. Furberg learned on his leadership journey, and engage in discussion about personal development, professional goals, and Grameenphone’s organizational values. Here are the top lessons that graduates took away from his session.

  1. Don’t change jobs often: Mr. Furberg, in the early years of his career, had only once changed his job within a year-and-a-half of joining. In his opinion, it takes almost six months for an employee to adjust to their workplace and understand the functionalities of a new workplace. Hence, one must give enough time to an organization so that they can create measurable impact.
  2. Gain experience from different job sectors: Before joining Telenor, Mr. Furberg worked in the banking sector as well as the government. Working in diverse fields helped him to gain a thorough understanding of the functions and processes of different sectors.
  3. It’s imperative to have a business plan: Mr. Furberg highlighted Telenor’s entry into the Bangladeshi market. For one of their first investments in Asia, Telenor wanted to reach out to 400,000 to 500,000 customers in Bangladesh. Within twenty years, that number increased to 60 million customers! Their business plan might not have been accurate, but it was still important because it clearly outlined what the company’s plan was.
  4. Change and adapt: You might not always be able to stick to your plans, and hence, it’s important to be able to change and adapt to challenges and opportunities that come your way.
  5. Learn something new: After a successful tenure as the Chief Financial Officer at Telenor in Thailand, Mr. Furberg was promoted to the Chief Marketing and Financial Officer. Although he had no prior experience in the field of marketing, he stepped up to the position and increased his wealth of knowledge.
  6. Step out of your comfort zone: Continuing the previous example, Mr. Furberg found himself in an uncertain role when he first became the Chief Marketing and Finance Officer. He was supervising people who have a vast knowledge in the field of marketing, whereas he didn’t have any. However, he stepped out of his comfort zone and faced the uncertainties of the new position, which became a fantastic asset when he became the Chief Executive Officer of Telenor in Thailand.

Near the end of his session, Mr. Furberg shared the four qualities that a successful leader must possess. They are:

  1. Be yourself: When you’re in a position of leadership, people are always scrutinizing you. Hence, it’s important to be genuine and not try to be someone that you’re not.
  2. Care and grow: People want to work for leaders who care about them and shows genuine interest in their personal growth.
  3. Accountability: A leader is always responsible for the organization, in success and in failure. Hence, it’s imperative that leaders hold themselves accountable as well as their team.
  4. The final and universal quality that everyone should possess is integrity. This is a universal principle that everyone should strive by. It is essential to be aware of what’s right and wrong. If you are with a leader or company that expects one to do something that is unethical, it’s better to move on rather than risking your career.

যে ৬টি কারণে আপনার অবশ্যই ক্যারিয়ার ফেয়ারে যাওয়া উচিৎ

4332 2888 Jamia Rahman Khan Tisa

ক্যারিয়ার সচেতন তরুণ তরুণীদের জন্য ক্যারিয়ার ফেয়ার একটি দারুণ প্ল্যাটফর্ম। এখানে যেমন চাকুরি বা ইন্টার্নশিপ লাভের সুযোগ থাকে তেমনি পাওয়া যায় ক্যারিয়ার সম্পর্কিত অনেক দিকনির্দেশনা। অনেক সময় আমরা মনে করি যে ছাত্রাবস্থায় কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথমবর্ষে ক্যারিয়ার ফেয়ারে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। কিন্তু ধারণাটি একেবারেই সঠিক নয়। কেননা কর্মক্ষেত্রে প্রবেশের প্রস্তুতি শুরু হয়ে যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম দিনটি থেকেই। ক্যারিয়ার প্ল্যানিং সম্পর্কে ভালো গাইডলাইন পেতে চাইলে অবশ্যই ক্যারিয়ার ফেয়ারে আপনাকে যেতে হবে। আসুন জেনে নিই কিছু কারণ যে জন্য আপনার অবশ্যই ক্যারিয়ার ফেয়ারে যাওয়া উচিত।

১.চাকুরিদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোকে খুব কাছ থেকে দেখার সুযোগ
একসাথে এতো সংখ্যক নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠানকে কাছে থেকে জানার ও দেখার সুযোগ ক্যারিয়ার ফেয়ার ছাড়া আপনি আর কোথাও পাবেন না। ক্যারিয়ার ফেয়ারে দেশের সেরা প্রতিষ্ঠানগুলোর মানবসম্পদ বিভাগ সহ শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকেন। তাদের কাছ থেকে সেই প্রতিষ্ঠানের কাজ সম্পর্কে যেমন জানা যায় তেমনি সেখানে কাজের সুযোগ সম্পর্কেও জানা যায়।

২.নেটওয়ার্কিং
ক্যারিয়ার ফেয়ারে শুধু যে নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিরা থাকেন এমন তো নয়। বরং আপনার মতই আরও অনেক ক্যারিয়ার সচেতন তরুণ তরুণীর সমাগম ঘটে সেখানে। তাই নেটওয়ার্কিং এর সুযোগটাও থাকে বিস্তৃত।

৩.প্যানেল ডিসকাশন

প্যানেল ডিসকাশনে বক্তাদের ক্যারিয়ার বিষয়ক বিভিন্ন প্রশ্ন করার সুযোগ থাকে

অনেকসময় ক্যারিয়ার ফেয়ারে প্যানেল ডিসকাশনের আয়োজন করা হয়। ডিসকাশনে আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকেন নিজ নিজ ক্ষেত্রে সফল বিভিন্ন ব্যক্তিরা। তারা বর্তমান চাকুরিবাজার, ভবিষ্যৎ এবং তরুণদের প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা করে থাকেন। এতে করে ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার গাইডলাইন এবং দিকনির্দেশনা পেতে সুবিধা হয়।

৪.চাকুরির বাজারের চাহিদা সম্পর্কে ধারণা লাভ
নিয়োগদাতারা আসলে কেমন লোক চাচ্ছেন, প্রার্থীর মাঝে কোন দক্ষতাগুলো তারা খুঁজছেন এই সমস্ত বিষয় খুব কাছে থেকে জানতে পারবেন ক্যারিয়ার ফেয়ারে গেলে। প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিরা তো তাদের চাহিদার কথা তুলে ধরেনই, পাশাপাশি প্যানেল ডিসকাশনের বক্তাদের বক্তব্য শুনেও চাকুরির বাজারের চাহিদা সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা পেতে পারেন।

৫.‘ইলেভেটর পিচ’ চর্চা
‘ইলেভেটর পিচ’ মানে হলো ৩০ থেকে ৬০ সেকেন্ডের মাঝে এমনভাবে নিজের সম্পর্কে কিছু বলা যাতে করে শ্রোতা আপনার সম্পর্কে আগ্রহী এবং আপনার সম্পর্কে তার মনে একটি ইতিবাচক ধারণা তৈরি হয়। যদিও ব্যাপারটা খুব কঠিন কিন্তু নিয়মিত চর্চায় এটি অনেকখানিই সহজ হয়ে যায়। নেটওয়ার্কিংকে ফলপ্রসূ করতে চাইলে ইলেভেটর পিচ  এ দক্ষ হওয়াটা খুব জরুরি। ইলেভেটর পিচ চর্চার একটা দারুণ প্ল্যাটফর্ম হতে পারে ক্যারিয়ার ফেয়ার যদি আপনি সেটাকে কাজে লাগান ঠিকমতো।

৬.চাকুরি বা ইন্টার্নশিপের সুযোগ

স্পট ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে পেতে পারেন চাকুরি বা ইন্টার্নশিপের সুযোগ

আপনার রেজিউমি যদি নিয়োগকর্তার পছন্দ হয় তবে আপনার জন্য তারা স্পট ইন্টারভিউ এর ব্যবস্থা করবে। এটি ক্যারিয়ার ফেয়ারের অন্যতম আকর্ষণীয় দিক।যদি নিয়োগদাতার চাহিদা অনুযায়ী যোগ্যতা আপনার মাঝে থাকে তবে পেয়ে যেতে পারেন কোন চাকুরি বা ইন্টার্নশিপের সুযোগ।আর যদি চাকুরি বা ইন্টার্নশিপের সুযোগ নাও পান তবুও হতাশ হওয়ার কিছু নেই। স্পট ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে আপনি কতটা যোগ্য, আপনার ইন্টারভিউ দক্ষতা কেমন, কোন কোন জায়গায় আরও উন্নতি প্রয়োজন সেগুলো জানাতে পারবেন।

তবে আর দেরি কেন? খোঁজ রাখুন কোথাও ক্যারিয়ার ফেয়ার হচ্ছে কিনা। যোগ দিন আর যাচাই করে নিন নিজেকে। ক্যারিয়ার গাইডলাইন তো পাবেন ই। বোনাস হিসেবে নিজের মাঝে সম্ভাবনা থাকলে হয়তো পেয়ে যেতে পারেন দারুণ কোন সুযোগ।

 

Eight days of class, learning for a lifetime— Three lessons from my time at Harvard Kennedy School

2177 1500 Almeer Ahsan Asif

Bangladesh Youth Leadership Center (BYLC) history has a deep-rooted bond with Harvard University. It was there that BYLC’s founder, Ejaj Ahmad, while completing his Masters, conceptualized the idea of a program that teaches adaptive leadership while bringing together young people from different backgrounds.  read more

কেমন হওয়া চাই ‘কথা’, যে ‘কথা’ দিয়ে আসে পরিবর্তন

5184 3456 Mutasim Billah

মানুষের সাথে কথা বলতে পারার বিষয়টিকে অনেকটা মহান নায়কোচিত মনে করা হয় কেননা এই কথার মাধ্যমেই মানুষ বিপ্লব ঘটাতে পারে তা হোক নিজের জীবনে কিংবা অন্যের। তা ব্যক্তিগত পর্যায়েও হতে পারে আবার একটি দেশ বদলে দেয়ার জন্যও হতে পারে। মহানবীর (দঃ)’র এর বিদায় হজ্বের ভাষণ আজও মুসলিম জাতির জন্য পথ প্রদর্শক হয়ে আছে। তেমনি ভাবেই সকল বিশ্বাসের মানুষের মূল ভিত্তিতেই আছে অনেক কথা। ৪০ বছরের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও এখনো যখন বঙ্গবন্ধুর দরাজ কণ্ঠের সেই ৭ই মার্চের ভাষণ শুনি শরীরের রক্ত টগবগিয়ে উঠে। আলোড়িত হয় মন। মনে হয় সব বাধা ভেঙ্গে এগিয়ে যাই অসম্ভবের দিকে। মনের কথা গুলোকে নিজের মনের ভাষায় বলার অধিকার আদায়ের জন্য পৃথিবীর ইতিহাসে এক মাত্র বাঙ্গালী জাতিই নিজের তাজা রক্ত দিয়ে রাজপথ লাল করেছে। read more

Kickstart Your Designing Career

4000 2666 Jubair Islam

It is always difficult to determine what you are going to do next when you are just graduating. It could be more difficult if you are planning to switch from another academic discipline. During my undergrad, I was an engineer in the making. I enjoyed studying science but was more fascinated by creative designing. However, the stereotype of a starving designer haunted me whenever I thought about a future that way, and I did not want to starve. read more

Expert’s Insights: An Interview with Fahim Rahman

4724 2657 Saanjaana Rahman

Mr. Fahim Rahman is an Executive Director, Corporate Strategy at the New Asia Group and was a guest speaker at the OPD Workshop 12 arranged by BYLC Office of Professional Development (OPD).

read more

We need classrooms that unite, not divide

1299 427 Shaveena Anam

“Apnar ki kono savings acche?” I asked a slum dwelling beneficiary of a poverty alleviation project, to gather information for case studies that showcased the success of the intervention. One of the field officers who was accompanying me quietly whispered to me that the Bangla word for savings was shonchoy and then turned to his colleague to explain, “Apa toh English medium”. “Ah” he said, and everyone around me in the tin-shed home nodded in unison—my accent, clothes, my entire being making sudden sense to them. Embarrassingly, I had never come across the word shonchoy before. I had attended an English-medium school and had the opportunity to go abroad to study. My education had made it easier for me to keep up with the indie film watching, Derrida quoting, vegan burger eating hipsters at my liberal arts college, but when I had returned in 2011 and started working at an NGO, I was suddenly rendered unintelligent and unintelligible because I couldn’t hold intellectual conversations in Bangla with my colleagues. I hadn’t read the same books, watched the same films, or listened to the same music. During school, Bangla lessons had been confined to hourly classes, three days a week. We might have shared space in the same city, but we certainly didn’t share the same experience of Bangladesh. read more

ওপিডি; পেশাগত উন্নয়নের এক অনন্য প্ল্যাটফর্ম

4000 2668 Jamia Rahman Khan Tisa

বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়া শেষ করেই চাকুরিতে যোগ দিতে আমরা প্রায় সবাই ই চাই। কিন্তু এক্ষেত্রে আমাদের কিছু সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। কেননা বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের বেশিরভাগ সময় আমাদের কাটে প্রাতিষ্ঠানিক পড়াশোনা আর বন্ধুবান্ধবের সাথে সময় কাটিয়ে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়া শেষ হওয়ার আগে আমরা কেউই ক্যারিয়ার নিয়ে বিশেষ ভাবিনা। আবেদন প্রক্রিয়া, প্রয়োজনীয় দক্ষতা, বাছাই প্রক্রিয়া, প্রফেশনাল এটিকেট সম্পর্কে আমাদের সঠিক জ্ঞানের প্রচুর ঘাটতি থাকে। ফলে আমরা পছন্দের চাকুরি বা ইন্টার্নশিপের সুযোগটি হারাই। কোন প্রফেশন বেছে নেবো সেটা নিয়েও আমরা সন্দিহান থাকি। কাজের পরিবেশ কেমন হবে সেটা নিয়েও অনেকের ধারণা থাকেনা। বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে এই বিষয়গুলোকে খুব একটা গুরুত্ব না দেওয়ার ফলাফল পড়াশোনা শেষে আমাদের ভালো মতনই ভুগতে হয়। বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের এই সমস্যার কথা মাথায় রেখেই ২০১৬ সালের এপ্রিলে বাংলাদেশ ইয়ুথ লিডারশীপ সেন্টার (বিওয়াইএলসি)র একটি অংশ হিসেবে যাত্রা শুরু করে অফিস অফ প্রফেশনাল ডেভেলপমেন্ট (ওপিডি)।

 

বিওয়াইএলসির বিভিন্ন লিডারশীপ ট্রেনিং প্রোগ্রামে অংশ নেওয়া গ্র্যাজুয়েটরা ওপিডির বিভিন্ন প্রফেশনাল ডেভেলপমেন্ট ওয়ার্কশপে অংশ নিতে পারে। ওপিডির ব্যবস্থাপক আশফাক কবির জানালেন ওপিডির কার্যক্রমের তিনটি উল্লেখযোগ্য দিক হলো প্রফেশনাল ডেভেলপমেন্ট ওয়ার্কশপ, চাকুরির সুযোগ তৈরি এবং চাকুরিদাতাদের সাথে তরুণদের সংযোগ স্থাপন করিয়ে দেওয়া। প্রতিবছর ওপিডি থেকে দেশের বিভিন্ন সেরা প্রতিষ্ঠানগুলোর শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে বিওয়াইএলসি গোল টেবিল বৈঠকের আয়োজন করা হয়। তাদের ফিডব্যাক এবং বর্তমান চাকুরিবাজারের চাহিদার কথা মাথায় রেখেই আমাদের প্রফেশনাল ডেভেলপমেন্ট ওয়ার্কশপগুলোর কারিকুলাম সাজানো হয়েছে। এখানে মূলত শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ার বিষয়ক গাইডলাইন, প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন এবং কর্মক্ষেত্রের বাস্তব পরিবেশ সম্পর্কে ধারণা প্রদানের উপর জোর দেওয়া হয়। একটা ইন্টারভিউ কিভাবে কার্যকর করতে হয়, কিভাবে রেজিউমি এবং কভার লেটার লিখতে হয়, নেগোসিয়েশনের ধরণ কেমন হবে এ সমস্ত বিষয়ে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ লাভের সুযোগ থাকে ওয়ার্কশপগুলোতে।

 

ওপিডির প্রতিটি ওয়ার্কশপে দেশের ভিন্ন ভিন্ন খাতের শীর্ষস্থানীয় পর্যায়ে কাজ করা মানুষেরা অতিথি হিসেবে আসেন এবং তাদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। তাদের দৃষ্টিতে বর্তমান চাকুরিবাজার, প্রয়োজনীয় দক্ষতার কথা তুলে ধরেন। শিক্ষার্থীরাও অতিথিকে প্রশ্ন করার সুযোগ পায়। এতে করে শিক্ষার্থীরা বাস্তব কর্মজীবন জীবন সম্পর্কে ধারণা পায়। নিজেদের কর্মজীবন পরিকল্পনা এবং সেই অনুযায়ী নিজেদের প্রস্তুত করতে পারে। ওপিডি ওয়ার্কশপের প্রশিক্ষণার্থী নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সুরভী মোহনা জানালেন, “ওপিডি থেকেই আমি জেনেছি সিভি আর রেজিউমি এক নয়। এখান থেকে আমি চাকুরিবাজার সম্পর্কে ধারণা লাভের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় দক্ষতাও অর্জন করতে পেরেছি।” আরেক প্রশিক্ষণার্থী বুয়েটের দিমিত্রি জানালেন, “ওপিডি ওয়ার্কশপে আমার জন্য সবচেয়ে সহায়ক ছিল ‘মক ইন্টারভিউ সেশন’ এবং ‘ইলিভেটর পিচ’। এই দুটি বিষয় সম্পর্কে হাতেকলমে জ্ঞান লাভের সুযোগ আমি পেয়েছি।”

 

শীর্ষস্থানীয় চাকুরিদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর অংশগ্রহণে ওপিডির উদ্যোগে প্রতিবছরই আয়োজিত হয় বিওয়াইএলসি ক্যারিয়ার ফেয়ার। যাতে সকল বিওয়াইএলসি গ্র্যাজুয়েটরা অংশ নেওয়ার সুযোগ পায়। ক্যারিয়ার ফেয়ারে প্যানেল ডিসকাশন, রেজিউমি সাবমিশন ও তথ্য আদান প্রদানের সুযোগ থাকে। উপস্থিত থাকেন দেশের সেরা প্রতিষ্ঠানগুলোর মানবসম্পদ উন্নয়ন কর্মকর্তারা। স্পট ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে অনেকে পছন্দের প্রতিষ্ঠানে চাকুরি লাভের সুযোগ পায়। সবকিছু মিলিয়ে ক্যারিয়ার ফেয়ারে চাকুরিবাজারকে শিক্ষার্থীরা খুব কাছ থেকে দেখার ও জানার সুযোগ পায় যা তাদের উন্নয়নে সহায়ক ভূমিকা পালন করে

How Not to Fix Problems When You are Fixing Problems

4000 2667 Fahmida Zaman Ema

Have you ever been a class captain? If you have, you may remember that as a “captain” of the class, you had certain authority as well as responsibilities. These responsibilities generally included to report and resolve class related issues. For example, if there was a fight in your classroom, it might have been within your jurisdiction to fix that problem. On the other hand, if you were one of the students who had a fight with a fellow classmate, you probably expected that your class captain had a role to play in resolving it. read more

Everyday Leadership: An Interview with Anik Sinha

5012 3648 Noshin Noorjahan

Over the years that I have been affiliated with BYLC, I met graduates who accomplished concrete goals at an age I deemed too young to achieve anything. I find their stories fascinating and look forward to learning about their perspectives towards life. read more